ঢাকা, সোমবার, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪৩০, ২০ নভেম্বর ২০২৩, ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৫

রাজনীতি

একতরফা নির্বাচনে দেশ ভয়ংকর কূটনৈতিক সংকটে পড়বে: সাকি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৯, ২০২৩
একতরফা নির্বাচনে দেশ ভয়ংকর কূটনৈতিক সংকটে পড়বে: সাকি

ঢাকা: একতরফা নির্বাচন করলে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ভয়ংকর কূটনৈতিক সংকটে পড়বে বলে মন্তব্য করেছেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি।  

রোববার (১৯ নভেম্বর) নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার প্রতিবাদে ৪৮ ঘণ্টার হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল করে গণতন্ত্র মঞ্চ।

মিছিল শেষে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে জোনায়েদ সাকি এ মন্তব্য করেন।

সাকি বলেন, আওয়ামী লীগের নেতারা জোর দিয়ে অনেক বড় বড় কথা বলেন। কিন্তু তাদের পুলিশ, র‍্যাব ও বিজিবির ছায়াতলে থাকতে হয়। বাহিনী রেখে তারা মাঠে নামার সাহস করে না। আজ তারা এভাবেই দেশটাকে ধ্বংসের দিকে নিচ্ছে।

আওয়ামী লীগকে আর ক্ষমতায় আসতে দেওয়া যাবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা দেশের মানুষের অধিকার কেড়ে নিচ্ছে, অর্থনৈতিক বিপর্যয় তৈরি করছে। তাড়া আরেকটি একতরফা নির্বাচন করলে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ভয়ংকর কূটনৈতিক সংকটের মধ্যে পড়বে। আমাদের দেশ নানা ধরনের বিপদের মধ্যে পড়বে।  

তিনি আরও বলেন, আজ এ সরকার দেশের মানুষ এবং পুরো দেশের অস্তিত্বকে নিয়ে বাজি ধরছে কেবল মাত্র ওই গদিটা টিকিয়ে রাখতে। তাই আজ মানুষ একতরফা তফসিল প্রত্যাখ্যান করেছে।

জোনায়েদ বলেন, আওয়ামী লীগ আসলে ক্ষমতায় থাকতে চায়। আর এ কারণেই তারা আজগুবি যুক্তি মানুষের সামনে হাজির করছে, ফেরি করছে। সবচেয়ে ভয়াবহ বিষয় হলো, নিজেরা সন্ত্রাস করে, নিজেদের এজেন্ট দিয়ে সন্ত্রাস করিয়ে, পুলিশ মেরে, সাংবাদিকদের ওপর হামলা করে, প্রধান বিচারপতির বাড়ির সামনে হামলা করে পুরো দোষ বিরোধী দলের ওপর চাপিয়ে দিল। আর এখন ক্র্যাকডাউন করছে। সর্বাত্মক দমন-পীড়ন চালাচ্ছে। প্রতিদিন গণতন্ত্র মঞ্চ, বিএনপিসহ সব বিরোধীদলের শত শত নেতাদের গ্রেপ্তার করছে। এটিই হচ্ছে তাদের একমাত্র অবলম্বন।  

সমাবেশে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, রাজনৈতিক সংকট রাজনৈতিকভাবেই সমাধান করতে চাই। আলাপ-আলোচনা করে রাজনৈতিক সংকটের সমাধান দেখতে চাই। এ সরকার পদত্যাগ করে কীভাবে নির্বাচনকালীন সরকার হবে, এ বিষয়ে যদি সরকারি দল নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়, তাহলে বিরোধী দল আলোচনায় অংশ নেবে।  

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনের নামে ২০১৪ ও ২০১৮ সালের মতো আরেকটি তামাশা এ দেশের মানুষ কোনোভাবেই হতে দেবে না। সময় এখনও কয়েকদিন আছে। আলোচনা করুন, সিদ্ধান্ত নিন। সোজা পথে হাঁটলে সংকটের শান্তিপূর্ণ সমাধান মিলবে।  

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সাধারণ সম্পাদক শহিদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, ভাসানী অনুসারী পরিষদের সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান রিজুসহ গণতন্ত্র মঞ্চের অন্যান্য নেতারা।  

বাংলাদেশ সময়: ১৭০৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৯, ২০২৩
এসসি/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।